Friday , August 23 2019
Home / ব্রাইডাল / বেনারসিতে বাঙালি সাজ | কী করে পাবেন গরজিয়াস ব্রাইডাল লুক?

বেনারসিতে বাঙালি সাজ | কী করে পাবেন গরজিয়াস ব্রাইডাল লুক?

বিয়ে আর বউভাতের রিসেপশনের সন্ধেতে কন্যে যেন রাজকন্যে। ট্র্যাডিশনাল বাঙালি কনের সাজের মাধুর্যে অভিভূত সারা বিশ্ব। শুধু কনে নয়, বিয়েবাড়ির সাজে বেনারসিতে হাত বাড়াচ্ছেন আধুনিকারা।

বেনারসির বিকল্প নেই
কনের সাজে তো বটেই, বিশেষ করে বিয়ের দিনটিতে বিয়েবাড়িতে যেতে বেনারসির কোনও বিকল্প থাকতে পারে না। বালুচরি, কাঞ্চিপুরম বা ধর্মাভরম যত গর্জাসই হোক না কেন, বেনারসির যে আভিজাত্যমাখা লাবণ্য আছে তা অন্য কোনও শাড়িতে নেই। ট্র্যাডিশন বজায় রেখেই বেনারসির ডিজাইন নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাচ্ছেন বেনারসের শিল্পীরা। আসলে ইয়াং জেনারেশন তো সব সময়েই নতুন কিছু খোঁজেন। তাই পরিবর্তন তো চাইই। বেনারসের ফ্যাক্টরিতে অজস্র নতুন নকশা বোনা হচ্ছে। গত কয়েকবছর ধরেই পাটলিপাল্লু স্টাইলের বেনারসির খুব ডিমান্ড। তবে তা সেলফ কালারেই সীমাবদ্ধ ছিল। লাল, মেরুন বা ম্যাজেন্টা জমিতে গোল্ডেন বর্ডার বুটি আর কুঁচি আঁচলে জরিরই জংলা কাজ এই ছিল ম্যারেজ স্পেশাল ডিজাইন।

বেনারসি চেনার টিপস
বেনারসি কিনে ঠকেছেন এমন মানুষের সংখ্যা বিস্তর। সিন্থেটিক সুতোয় বোনা বেনারসির গেট আপ আজকাল এত ভালো হচ্ছে যে অনেকেই বুঝতে পারছেন না মেটিরিয়ালটা কী? এই সিন্থেটিক বেনারসির জরিটাও ঠিক জরি নয়। ফাইন কোয়ালিটির গোল্ডেন রঙের প্লাস্টিক সুতোয় বোনা হচ্ছে শাড়িগুলো। এতে নকশা বোনা যাচ্ছে আসল বেনারসির মতোই।
পরের স্টেজে রয়েছে পিওর সিল্ক সুতোর ‘টানা’ ও পলিসিল্ক সুতোর ‘বানা’য় তৈরি ডাবল কাতান বেনারসি। এই বেনারসিরও গেট আপ যথেষ্ট ভালো। এর জরিটি তামার থ্রেডের সঙ্গে সিন্থেটিক গোল্ড মিলমিশে তৈরি। এই বেনারসির জরির রংটা একটু কালচে (তামাটে) হয়। পিওর জরির একটি বেনারসি পাশে না রাখলে অবশ্য কোনও তফাৎ বোঝা যাবে না। এতেও প্রচুর সুন্দর সুন্দর নকশা হচ্ছে।
পিওর টুইস্টেড সিল্ক সুতোর টানা’ ও ‘বানা’য় তৈরি বেনারসির কোয়ালিটি সবথেকে ভালো। এর রঙের গ্লেজই অন্য রকম। গোল্ডেন জরিতেও হলদেটে সোনা রং। এতে সিলভার জরির কাজও পাবেন। গোল্ডেন সিলভার মিক্স ম্যাচ করেও খুব সুন্দর সুন্দর নকশা হচ্ছে। আবার রেশম সুতোর সঙ্গে জরির মিনাকারি নকশাও এই জমিতেই করা যায়। জমিতে হাত দিলেই বুঝবেন, অত্যন্ত নরম অথচ টানটান। এই টুইস্টেড সিল্ক সুতো শুধু আমাদের দেশেরই নয়, কোরিয়া থেকেও আমদানি করা হয়। খুব দামি বেনারসির তৈরির সময় নিচে একটা লাইনিং বেস দেওয়া হচ্ছে। এতে শাড়ির ঔজ্জ্বল্য যেমন বাড়ছে, তেমনই টেঁকসইও হচ্ছে। যাই হোক, কেনার সময় যাতে ঠকে না যান তার জন্য বলি, কোল আঁচলের দিকে যেখানে ‘ছিলে’ থাকে, সেখানে বেনারসির সুতোটা দেখা যায়। এখানে হাত দিয়ে দেখুন সিল্ক সুতো হাতে নিলেই বুঝবেন। জরির দিকেও লক্ষ করবেন। সিন্থেটিক বেনারসির জরির থ্রেডগুলো দেখবেন পিওর জরির তুলনায় অনেক মোটা। জরির রঙের তফাতটাও লক্ষ করবেন।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *